‘ভালো কিছু পেতে হলে কঠিন পরিশ্রম করতে হবে’

গ্র্যাজুয়েশনের ঠিক পর পরই স্বপ্নের পেশায় প্রবেশ করা অত সহজ নয়, আবার বয়স ৩০ পার হওয়ার আগেই যে কেউ উচ্চপদে আসীন হবেন, তা-ও সচরাচর দেখা যায় না। লন্ডনভিত্তিক পেশাদার আনিকা খানের বেলায় কিন্তু ঘটেছে অন্য রকম ঘটনা।

আত্মবিশ্বাসী ও চ্যালেঞ্জ গ্রহণে আগ্রহী আনিকা খানের বয়স যখন ২১ বছর, তখনই তাকে ইংরেজ অর্থায়নকারী ও টেরা ফার্মা ক্যাপিটাল পার্টনারসের প্রতিষ্ঠাতা গাই হ্যান্ডস কাজের দায়িত্ব দেন। আর এ প্রতিষ্ঠানের ইতিহাসে আনিকাই ছিলেন সর্বকনিষ্ঠ কর্মী।

মাত্র ২৬ বছর বয়সে তিনি যুক্তরাজ্যের প্রপার্টি সার্চ ওয়েবসাইট জুপলারের প্রধান কৌশল নির্মাতার দায়িত্ব পালন করেন। ২৮ বছর বয়সেই নিজের কোম্পানি এক্সপোর্টা খোলেন। এক্সপোর্টা ক্রেতা, ইন্টেরিয়র ডিজাইনার, ব্র্যান্ডগুলোর একটি ই-কমার্স প্লাটফর্ম। প্রতিষ্ঠার এক বছর পরই এক্সপোর্টা মাথা তুলে দাঁড়িয়েছে।

৩১ বছর বয়সী আনিকা খান এখন এক্সপোর্টার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা। তিনি অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রাজনীতি, দর্শন শাস্ত্র ও অর্থনীতিতে মাস্টার্স করেছেন। প্রাইভেট ইকুইটি ফার্মে গাই হ্যান্ডসের সঙ্গে জীবনের প্রথম কাজ করার অভিজ্ঞতা আনিকার ভালোই ছিল।

গাই হ্যান্ডস বর্তমানে এক্সপোর্টার বিনিয়োগকারী। নিজের ব্যবসায় শুরুর প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমার মা-বাবা দুজনেরই নিজস্ব ব্যবসায় রয়েছে। আমিও চাইতাম নিজে কিছু করার। জুপলায় কাজ করার সময় তিনি তার দক্ষিণ-পশ্চিম লন্ডনের বাড়িকে আবার নকশা করছিলেন। তখন অনলাইনে পছন্দের আসবাব কিনতে পারছিলেন না।

ফলে রোজই আসবাবপত্রের দোকানে ঢুঁ মারতে হতো। তিনি উপলব্ধি করলেন এমন একটি অনলাইন প্লাটফর্ম প্রয়োজন, যেখানে ক্রেতা-বিক্রেতা প্রয়োজনীয় জিনিসটির বিষয়ে যোগাযোগ করতে পারবেন। আর এ চিন্তা থেকেই এক্সপোর্টার জন্ম, যেখানে উপস্থিত হয়েছে বিশ্বের বিভিন্ন ব্র্যান্ড, আর ক্রেতারা চাইলেই মনমতো পণ্যটি খুঁজে পেতে পারে।

এক বছরের মাথায় এক্সপোর্টায় বিশ্বের ৪০টি দেশের নয় শতাধিক পণ্য সরবরাহকারী ও আড়াই হাজারের বেশি ক্রেতা যুক্ত হয়েছে। খুব অল্প সময়ের মধ্যেই বিশ্বে অনলাইন ইন্টেরিয়র বাণিজ্যের সবচেয়ে বড় প্লাটফর্ম হয়ে দাঁড়িয়েছে এক্সপোর্টা। এক্সপোর্টা মধ্যপ্রাচ্য ও যুক্তরাষ্ট্রে পণ্য সরবরাহের মতো বৃহৎ পরিকল্পনাও করছে।

নারীদের উদ্দেশে আনিকার ভাষ্য, নিজের ওপর বিশ্বাস রাখতে হবে। ভালো কিছু পেতে হলে সুযোগের অপেক্ষায় বসে না থেকে কঠিন পরিশ্রম করতে হবে।

তথ্যসূত্র: দ্য এভরি গার্ল

Check for details
SHARE