সফলতার জন্য বয়স কোন বাধা নয়।

আপনার বয়স পঁচিশ কিংবা ত্রিশ পেরিয়ে। চারদিকে আপনার বন্ধু মহল, ছোট ভাইদের মাঝ থেকে অনেকগুলো ছোটভাই আজ বেটার স্টাবলিস্ট। আবার কেহ বা আছে ক্যারিয়ার গড়ার মহোদ্যমে। মূল ট্রাক হাতের নাগালে।

আপনি তাদের দেখছেন আর ভাবছেন, আপনিই পিছিয়ে! সবার থেকে পিছিয়ে! ভাবছেন এমন হবার কথা ছিলনা। অতীতে আপনার যারা ফলোয়ার ছিল, আজ তাদের মোটেই সময় নেই, দু মিনিটের একটি ফোন দেয়ার। সমাজ ও পরিবার এ দুটো জায়গাতেই, আজ আপনি সবার আচরণ লক্ষ্য করছেন। অনেকে আবার মাঝেমাঝে আপনার খোঁজ নিচ্ছে, যা কিনা আপনার কাছে হুমকি!

ধরুন কেউ আপনাকে জিজ্ঞেস করলো, ভাই, আপনাকে তো অনেক বেটার প্লেসে দেখব আশা করছিলাম! তো, কি অবস্থা, কি করেন বা কি করবেন ভাবছেন?
আপনি জবাব দিলেন, দেখ আমি ভাল কিছু করবোই, ইনশাআল্লাহ।
→ এই তীর ছুটলো আপনার দিকে- আর করেন ভাইয়া!!! আর কবে? আর কবে?
এই “কবে’ই” প্রতিনিয়ত আপনার কান ঝালাপালা করছে, হৃদ স্পন্দন বেরে যাচ্ছে, মূলে এই “কবে”!!!

আপনি বোকা! যার বা যাদের কথায় আপনি আপনার মাঝে বাসা বানিয়েছেন “হতাশা “। একটু ভেবে দেখুন, যে লোকটি বা যারা আপনাকে কটূ ভাবে দেখছে বা আপনাকে ফেইলরের কাতারে দেখছে! সে বা তারা কি কখনো আপনার হাত ধরেছিল? তারা কি কেউ আপনার পথপ্রদর্শক হয়েছেন বা হবেন?

যদি তিনি সুখের বার্তাবাহক না হন, তার কাছ থেকে কষ্ট কেন আপনি গ্রহন করেন? যে আপনার আনন্দের করন হতে পারেনা, মনেমনে বলতে শুরু করুন- তার কথার দাম নেই, আমার কাছে অচল পয়সার মত! আর মাঝেমাঝে জোড় গলায় বলতে চেষ্টা করুন- আমি মোটেই হতাশ নই, আপনার কাজ আপনি করুন। দেখবেন, সে আপনাকেেএড়িয়ে চলছে। মন খারাপ করবেন না, এটা আপনার জন্য পজেটিভ। মনে রাখবেন- “দুষ্ট গরুর থেকে, শূন্য গোয়াল অনেক ভাল”।

আপনার বয়সকে যারা, সামনে অগ্রসর হওয়ার দেয়াল বানিয়ে দেয়! একটু ভাবুন- সে কিন্তু অলিম্পিকে মশাল ধরেনি! নাকি বয়স মশাল ধরেছে? এখন তার বয়স ভাবুন, আর ভাবুন- সেই বা কি করতে পেরেছে? চাকুরী করে, এই তো? মানে চাকর! আপনি মুক্ত স্বাধীন। আপনি পরাধীন নন, এটাই আপনার জীবনে হওয়া উচিৎ সবথেকে বড় শুকরিয়া, আলহামদুলিল্লাহ।

আপনি নিজেও হয়তো বুঝছেন না, যে আপনি কে? আপনি হাজারো কর্মের মৌন বাসনা পুষছেন নিজের মাঝে, সে সবই হচ্ছে- উদ্যোগ। হ্যাঁ আপনি উদ্যোক্তা এবং প্রোডাক্টিভ সেন্স এর মানুষ। আপনি কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করবেন, আল্লাহ্ আপনার দ্বারা কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করাবেন, তাই কি করে আপনি কামলা হবেন? এখন ভাবুন, যিনি আপনাকে “কবে’র” প্রশ্ন করে? আপনি বয়সী সে বয়সী নাকি ডঃ মুহম্মদ ইউনুছ বয়সী? আপনি তাকে জানিয়ে দিন, অকালে পাঁকা লোক আপনি নন।

আরে আপনিই তো এগিয়ে, হাজার স্টেশন চিনেন, হাজার জনতা চিনেন, আপনি সহস্র পথ চিনেন, আপনি চিটার চিনেন, বদমাশ চিনেন, ভালমন্দ চিনেন, চিনেন ভাল মানুষ। আর যারা আপনাকে বলে যাচ্ছে ”কবে”, তারা এক কেন্দ্রীক, তাদের সাহস নেই আপনার আছে। তারা দর্শক, আপনি যোদ্ধা। তারা নিজের জন্য, আপনি সবার জন্য। তার পৃথিবী তার ঘর, আপনার ঘর সমস্ত পৃথিবী। আপনার সব থেকে বড় সফলতা, আপনি সবার।

লেখক: ছান্নু
নিয়মিত পাঠক/ উদ্যোক্তার খোঁজে ডটকম।

Check for details
SHARE