রপ্তানি বিল আদায় প্রক্রিয়া!

রপ্তানি দলিলপত্রসমূহ নেগোসিয়েশন করার পর আপনার ব্যাংক DHL Courier -এর মাধ্যমে ৩ দিনের মধ্যে মূল দলিল আপনার ক্রেতার ব্যাংকে পাঠাবেন। ব্যাংক থেকে নিয়ম অনুযায়ী ২১ দিনের মধ্যে আপনার পেমেন্ট আইনত হবে। এই জন্য নিম্নের কাজগুলো আপনার Commercial section কে করতে হবে।

একঃ মূল ক্রেতাকে আপনার পক্ষ থেকে রপ্তানি প্রেরনের তারিখ DHL নম্বরসহ Fax -এর মাধ্যমে জানিয়ে দিতে হবে। দুইঃ সম্ভব হলে LC Term অনুযায়ী এক সেট রপ্তানির ডকুমেন্ট আপনার ক্রেতার নিকট প্রেরণ করতে হবে। তিনঃ প্রতিদিন ব্যাংকে খোঁজ নিতে হবে পেমেন্ট এসেছে কি না। চারঃ সাতদিন পর ক্রেতাকে স্মরণ করিয়ে দিতে হবে যাতে ২১ দিনের পূর্বে Payment Release করে দেয়।

পাঁচঃ আপনার অফিসে রপ্তানি ডকুমেন্ট এর একটি ফাইল রাখতে হবে। এই ফাইলে সব ডকুমেন্ট -এর কপি থাকবে। ছয়ঃ যদি আপনার অফিসের সকল কাজ কম্পিউটারে হয়ে থাকে, তবে কম্পিউটার এন্ট্রি ঠিক সময়ে দিতে হবে যাতে নিয়মিত আপনি ফলোআপ করতে পারেন। সাতঃ আপনার অফিসের একাউন্টস সেকশন-এ অনুরূপ এন্ট্রি দিয়ে দিতে হবে।

আপনার রপ্তানিকৃত পণ্যের কাঁচামাল যদি ব্যাক টু ব্যাক এল সি-এর মাধ্যমে এনে থাকেন, তখন রপ্তানি বিলের অর্থ দ্রুত আদায় করা আপনার জন্য খুবই জরুরি। আর যদি ক্যাশ বা অন্য যে কোনভাবে কাঁচামাল আমদানি করে থাকেন তখন রপ্তানি বিলের অর্থ আদায়ে তেমন কোন দায় থাকে না। কিন্তু তবুও ব্যাংকের অন্যান্য পাওনা পরিশোধের জন্য দ্রুত রপ্তানি বিল আসাটা খুবই জরুরি।

আপনি যত আমদানি ঋণপত্রের দায় পরিশোধ করবেন তত কম সুদ আপনাকে দিতে হবে। তাই আপনাকে দ্রুত দায় পরিশোধে সচেষ্ট থাকতে হবে। এক্ষেত্রে ব্যাক টু ব্যাক এল সি না করেও EDF- Export Development Fund )-এর সুযোগ গ্রহণ করতে পারেন। তাতে সুদের পরিমাণ খুবই কম। কিন্তু বাংলাদেশে কিছু ব্যাংক EDF ফান্ড ব্যবহার করে না, ফলে ব্যাংকের গ্রাহকদের উচ্চহারে লভ্যাংশ দিয়ে ব্যবসা করতে হয়। আপনার রপ্তানি ঋণপত্রের আয় যে দিন পাবেন সেদিনই আমদানি ঋণপত্রের দায় পরিশোধ করবেন। তাতে সুদের পরিমাণ কম আসবে। ফলে কোম্পানির বেশ সাশ্রয় হবে।

তথ্যসূত্র: ইন্টারনেট।

Check for details
SHARE