ঠিকাদার ব্যবসার জন্য ই-টেন্ডার রেজিষ্ট্রেশন প্রক্রিয়া

ই-জিপি (ইলেকট্রনিক গর্ভনমেন্ট প্রোকিওরমেন্ট) ওয়েব পোর্টাল পদ্ধতির মাধ্যমে বিশ্বের যে কোন জায়গা থেকে ঠিকাদাররা দরপত্রে অংশ নিতে পারবেন। ই-টেন্ডারিংয়ের মাধ্যমে ঠিকাদার রেজিস্ট্রেশন, টেন্ডার আহ্বান, দাখিল, টেন্ডার খোলা, তার মূল্যায়ন, অনুমোদন এবং কার্যাদেশ দেওয়াসহ টেন্ডার সংক্রান্ত সবরকম কাজ অনলাইনের মাধ্যমে করতে হবে। সরকারী নির্দেশনা মেনে সকল দেশীয় ও আর্ন্তজাতিক দরদাতা, ঠিকাদার, পরামর্শক প্রতিষ্ঠানকে ইটেন্ডার রেজিষ্ট্রেশন করতে হবে। চলতি ২০১৬ সালে আপনাকে ই-টেন্ডার রেজিষ্ট্রেশনের আওতায় আসতে হবে ঠিকাদারী ব্যবসায় পরিচালনা করতে হলে।

ইটেন্ডার রেজিষ্ট্রেশন সম্পূর্ণ করার মাধ্যমে ইজিপি সিষ্টেমে প্রকাশিত দরপত্রে অংশগ্রহন করা যাবে। দরপত্রদাতা/পরামর্শক প্রতিষ্ঠান/ব্যক্তি পরামর্শক/সরকারী মালিকানাধীন এন্টারপ্রাইজ সমূহ রেজিষ্ট্রেশন পক্রিয়া সফলবাবে সম্পন্ন করার পরই একজন দরদাতা হিসেবে ইজিপি সিষ্টেমের ড্যাশবোর্ডে প্রবেশ করতে পারবেন এবং প্রকাশিত দরপত্রে অংশগ্রহন করবেন।
ইটেন্ডার রেজিষ্ট্রেশনের জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র:
দেশীয় দরপত্র দাতা/ পরামর্শক প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে আবশ্যিক কাগজপত্র:

-কোম্পানী ইনকর্পোরেশন সনদ ( কোম্পানীর ক্ষেত্রে) অথবা কোম্পানী নিবন্ধনের সকল কাগজপত্র।
-ট্রেড লাইসেন্স
-বৈধ করদাতা সনাক্তকরনের সনদ (টিআইএন)
-মূল্য সংযোজন কর সংক্রান্ত সনদ (ভ্যাট)
-ফার্ম/কোম্পানী এডমিন এর জন্য কোম্পানী/ ফার্মের মালিক থেকে অনুমতিপত্র (অথোরাইজড লেটার)।
-অথোরাইজড এডমিন এর জাতীয় পরিচয় পত্র অথবা পাসপোর্টের কপি।
-ইজিপি নিবন্ধনের ফি জমার রশিদ।
-অথোরাইজড এডমিন এর এক কপি পাসপোর্ট সাইজ সদ্য তোলা রঙিন ছবি।
আর্ন্তজাতিক দরপত্র ও পরামর্শক প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে আবশ্যিক কাগজপত্র:

-কোম্পানী ইনকর্পোরেশন সনদ ( কোম্পানীর ক্ষেত্রে) অথবা কোম্পানী নিবন্ধনের সকল কাগজপত্র।
-ট্রেড লাইসেন্স (প্রযোজ্য ক্ষেত্রে)।
-বৈধ করদাতা সনাক্তকরনের সনদ (টিআইএন)
-মূল্য সংযোজন কর সংক্রান্ত সনদ (ভ্যাট) অথবা গুড এন্ড সার্ভিস ট্যাক্স (জিএসটি) নিবন্ধন সনদ।
-ফার্ম/কোম্পানী এডমিন এর জন্য কোম্পানী/ ফার্মের মালিক থেকে অনুমতিপত্র (অথোরাইজড লেটার)।
-অথোরাইজড এডমিন এর জাতীয় পরিচয় পত্র অথবা পাসপোর্টের কপি।
-ইজিপি নিবন্ধনের ফি জমার রশিদ।
-অথোরাইজড এডমিন এর এক কপি পাসপোর্ট সাইজ সদ্য তোলা রঙিন ছবি।

সরকারী মালিকানাধীন (জাতীয়) এন্টারপ্রাইজের ক্ষেত্রে আবশ্যিক কাগজপত্র:

-সংবিধিবদ্ধ সংস্থা হিসেবে প্রমানের জন্য সরকারী আদেশ।
-অর্থবিভাগ কর্তৃক প্রদত্ত আর্থিক সায়ত্বশাসন সম্পর্কিত সনদ।
-অথোরাইজড এডমিন এর জাতীয় পরিচয় পত্র অথবা পাসপোর্টের কপি।
-অথোরাইজড এডমিন এর এক কপি পাসপোর্ট সাইজ সদ্য তোলা রঙিন ছবি।
-অথোরাইজড এডমিন এর অনুমতিপত্র। ( লেটার অব অথোরাইজেশন)।
-ইজিপি নিবন্ধনের ফি জমার রশিদ।

ব্যক্তিভিত্তিক পরামর্শক (জাতীয় এবং আর্ন্তজাতিক) ক্ষেত্রে আবশ্যিক কাগজপত্র:

– জাতীয় পরিচয় পত্র অথবা পাসপোর্টের কপি।
-ইজিপি নিবন্ধনের ফি জমার রশিদ।
-এক কপি পাসপোর্ট সাইজ সদ্য তোলা রঙিন ছবি।

গনমাধ্যম (জাতীয় এবং আর্ন্তজাতিক) ক্ষেত্রে আবশ্যিক কাগজপত্র:

-গনমাধ্যম কোম্পানী/ সংস্থা কর্তৃক প্রদত্ত পরিচয়পত্র।
– জাতীয় পরিচয় পত্র অথবা পাসপোর্টের কপি।
-ইজিপি নিবন্ধনের ফি জমার রশিদ।
-এক কপি পাসপোর্ট সাইজ সদ্য তোলা রঙিন ছবি।
নির্ধারিত ফি ব্যাংকে জমাদান সাপেক্ষে আবেদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হবে। বিদেশী বা আর্ন্তজাতিক প্রতিষ্ঠানকে ই টেন্ডারিং এর ফি মার্কিন ডলারের হিসাব করে প্রদান করতে হবে। রেজিষ্ট্রেশন প্রক্রিয়া সফলভাবে সমাপ্ত হওয়ার পর প্রতি বছর আপনাকে নিবন্ধন নবায়ন করে নিতে হবে।

মো: নজরুল ইসলাম/ উদ্যোক্তার খোঁজে ডটকম।

Check for details
SHARE