জিমনেশিয়াম এর ব্যবসা করতে পারে আপনাকে সফল উদ্যোক্তা….

12003034_623356871101438_1089555592418725320_nগতানুগতিক চাকরি বা ব্যবসার আশায় বসে না থেকে ভিন্নধর্মী ব্যবসায় করে আপনি খুব সহজেই পরিবর্তন করতে পারবেন নিজের ভাগ্যকে। আমাদের অনেকের টাকা থাকা সত্ত্বেও তা বিনিয়োগের সঠিক জায়গা খুঁজে পাচ্ছিনা। আর তাদের জন্য চমৎকার একটি ক্ষেত্র হতে পারে এই শরীরচর্চা কেন্দ্র বা জিমনেশিয়াম। এ ব্যবসা সম্পর্কে বিস্তারিত জানানোর চেষ্টায় আমি মাসুদুর রহমান মাসুদ আপনাদের সকলকে আমন্ত্রন জানাচ্ছি। 


বর্তমানে আমরা খুবই স্বাস্থ্য সচেতন। আর এই বাস্তবতাকেই অবলম্বন করে শুরু হোক আপনার শরীরচর্চা বা জিমনেশিয়াম ব্যবসা। আমাদের দেশের প্রেক্ষাপটে এ ব্যবসা বা উদ্যোগ বলতে গেলে এখনও নতুন। মানুষের মধ্যে আগের তুলনায় এখন স্বাস্থ্য-সচেতনতা অনেক বেড়েছে। বিশেষ করে তরুণরা স্বাস্থ্যের ব্যাপারে বেশ সচেতন এখন। কিন্তু তাদের চাহিদা অনুযায়ী নেই শরীরচর্চা বা ব্যায়ামের জায়গা। আর এই সুযোগকে আপনি কাজে লাগিয়ে হতে পারেন সফল।

শরীরচর্চা কেন্দ্র বা জিমনেশিয়ামে এর জন্য মোটা অঙ্কের টাকা বিনিয়োগ করতে হয়। তবে প্রাথমিকভাবে বড় পরিসরে শুরু করতে না চাইলে আপনি স্বল্প পরিসরেও শুরু করতে পারেন। আপনি নিজে জিমনেশিয়াম স্থাপনের আগে প্রতিষ্ঠিত কয়েকটি জিমনেশিয়াম ঘুরে দেখতে পারেন। প্রয়োজনে জিমনেশিয়োমের মালিক ও সেখানের প্রশিক্ষকদের সঙ্গে কথা বলতে পারেন। এতে করে এ ব্যবসা সম্পর্কে আপনার একটি ভালো ধারণা আসবে।

জিমনেশিয়ামে সদস্যরা সাধারণত আসে স্বাস্থ্য ঠিক রাখা, মডেল ফিগার তৈরি করা, বডি বিল্ডআপ করা ও মেদ বা ওজন কমানোর জন্য। আর আপনাকে এ ধরনের সদস্যদের টার্গেট এ রেখেই এগিয়ে যেতে হবে আপনার জিমনেশিয়াম ব্যবসার প্রসারে।

জিমনেশিয়ামের জন্য উপযুক্ত স্থান নির্বাচন কিন্তু খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। এ জন্য স্থান নির্বাচনের ক্ষেত্রে আপনাকে ভুল করলে চলবে না। স্থান বা জায়গা নির্বাচনের উপর নির্ভর করবে আপনার ব্যবসার সফলতার অনেকাংশ। খোলামেলা ও পর্যাপ্ত আলো-বাতাস পাওয়া যাবে এমন স্থান বেছে নিতে হবে আপনাকে।

যারা আপনার সেবাটি গ্রহন করবে তাদের যাতায়াতে সুবিধা হবে এ রকম জায়গা নির্বাচন করতে হবে আপনাকে। যেহেতু আপনার সেবাটি বেশিরভাগ তরুণেরা গ্রহন করবে সেহেতু তরুণরা বেশি যাতায়াত করে এমন একটি স্থানে আপনার জিমনেশিয়াম স্থাপন করতে হবে।

জিমনেশিয়াম স্থাপনের আগে এলাকার তরুণদের সঙ্গে কথা বলে নিতে পারেন বা তাদের মতামত, আগ্রহ এসব বিষয় যাচাই করেও দেখতে পারেন আপনি। জিমনেশিয়াম স্থাপনের পর তার একটি সুন্দর নাম ঠিক করতে ভুল করবেন না। তারপর একটি সাইনবোর্ড ঝুলিয়ে নিন। এলাকায় পোস্টারিং, লিফলেট, ব্যানার প্রভৃতির মাধ্যমেও প্রতিষ্ঠানের প্রচার করতে পারেন।

আপনার জিমনেশিয়াম যে এলাকায় স্থাপন করবেন সে এলাকায় বেশি চলে এ রকম কোনো দৈনিক পত্রিকায় বিজ্ঞাপনও দিতে পারেন। আর তা সম্ভব না হলে দৈনিক পত্রিকাগুলোর ভেতর প্রচারপত্র ঢুকিয়ে তা বিলি করতে পারেন হকারের মাধ্যমে। পত্রিকার হকারদের কিছু টাকা ধরিয়ে দিলেই তারা এ ব্যবস্থা করে দেবে।

একটি জিমনেশিয়ামের জন্য ট্রেডমিল, সাইক্লিং, পুশআপ বার, ডাম্বেলসহ অনেক কিছুরই প্রয়োজন হয়। ট্রেডমিলের দাম ৫০ হাজার থেকে ছয় লাখ টাকা। পুশআপ বার ৩০০ থেকে ৫০০ টাকা, সাইক্লিং সাড়ে পাঁচ থেকে ১০ হাজার, ক্রস ট্রেইনার পাঁচ থেকে আট হাজার, স্টেপার ছয় থেকে ১০ হাজার এবং স্মিথ স্কট ও ক্রসবার পাওয়া যাবে এক লাখ ২০ হাজার থেকে এক লাখ ৫০ হাজার টাকায়। বারবেল ও ডাম্বেল কিনতে হয় কেজি হিসেবে।

লেট পুল ডাইন ৬০ থেকে ৭০ হাজার, লেগ প্রেস মেশিন ৬০ থেকে ৮০ হাজার টাকা এবং অলিম্পিক বার বেঞ্চ প্রেস, অলিম্পিক বেঞ্চ ইনক্লায়েন্ট, ডিকলায়েন্ট প্রভৃতি পাওয়া যাবে ৩৫ থেকে ৪০ হাজার টাকায়। শরীর গরম করার স্যনা মেশিনের দাম পড়বে ৮০ হাজার থেকে এক লাখ টাকা। টি-বারের দাম পড়বে ৪০ থেকে ৫০ হাজার টাকা, শোল্ডার প্রেস মেশিন ৬০ থেকে ৭০ হাজার ও স্টিম বাথ পাওয়া যাবে এক লাখ ৩০ হাজার থেকে এক লাখ ৫০ হাজার টাকায়।

এ সেক্টরের বেশিরভাগ যন্ত্রপাতি আসে চীন ও তাইওয়ান থেকে। তবে আমাদের দেশেও কিছু সরঞ্জাম তৈরি হয়। স্টেডিয়াম মার্কেট ছাড়াও ঢাকার গুলশান, বনানীর অভিজাত দোকানগুলোয় এসব ব্যায়ামের সরঞ্জাম কিনতে পাবেন আপনি। আর এসব যন্ত্রপাতি কেনার সময় দক্ষ বা অভিজ্ঞ কোনো ট্রেইনারকে সঙ্গে রাখতে হবে আপনাকে যে এ সম্পর্কে খুব ভাল বুঝে।

আপনার জিমনেশিয়ামটি ভালোভাবে পরিচালনার জন্য অবশ্যই দু’জন প্রশিক্ষকের প্রয়োজন হবে। এদের মধ্যে একজন প্রধান প্রশিক্ষক, তিনি সদস্যদের রুটিন করে দেবেন। আর একজন প্রশিক্ষক যিনি থাকবেন তিনি রুটিন অনুসারে সদস্যদের শরীরচর্চা দেখিয়ে দেবেন। এ ছাড়া সবকিছু ঠিকঠাক করার জন্য আরও দুই-তিনজন কর্মীর প্রয়োজন পড়তে পারে আপনার।

আপনার জিমনেশিয়ামে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত যন্ত্রের ব্যবস্থা রাখতে হবে। আর তা সম্ভব না হলে অবশ্যই পর্যাপ্ত ফ্যানের ব্যবস্থা করতে হবে আপনাকে। জিমের অনেক যন্ত্রপাতি বিদ্যুৎচালিত, আর তাই লোডশেডিং থেকে রক্ষা পেতে চাইলে আপনাকে বিকল্প বিদ্যৎ এর ব্যবস্থা হিসেবে জেনারেটর রাখতে হতে পারে। আর সেই সাথে সাউন্ড সিষ্টেম রাখতে হবে যাতে আপনার গ্রাহকেরা ব্যায়াম করার সাথে একটু বিনোদনও পায়।

বন্ধুরা আপনাদের সকলের জন্য অনেক অনেক শুভ কামনা জানিয়ে বিদায় নিব। আপনারা সফল উদ্যোক্তা হয়ে দেশের অর্থনীতিতে অবদান রাখবেন সেই সাথে আপনাদের হাত ধরে নতুন নতুন কর্মসংস্থানের সৃষ্টি হবে এটা আমাদের প্রত্যাশা। আমাদের উদ্যোগের সফলতার মুখ আমরা দেখতে পাই আপনাদের লাইক, শেয়ার ও কমেন্টস এর মাধ্যমে। তাই আমাদের পোষ্ট শেয়ার করে পৌছে দিতে পারেন আপনার বন্ধুদের কাছে। ধন্যবাদ সকলের জন্য…….

 

Check for details
SHARE