গার্মেন্টস শ্রমিকদের মজুরি ১৬ হাজার করার দাবি !

গার্মেন্টস শ্রমিকদের সর্বনিন্ম মজুরি ১৬ হাজার টাকা নির্ধারণের দাবি জানিয়েছেন জাতীয় গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশনের (এনজিডব্লিউএফ) নেতারা। এদিকে একই দাবিসহ কৃষিপণ্যের লাভজনক মূল্যের দাবিতে গণজমায়েত কর্মসূচি পালন করেছে সমাজতান্ত্রিক মজদুর পার্টি ও গণমোর্চা।

মজদুর পার্টির সাধারণ সম্পাদক ডা. শামসুল আলমের সভাপতিত্বে কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন- গণমোর্চার সমন্বয়কারী মো. মাসুম, জাতীয় স্বাধীনতা পার্টির মহাসচিব মিজানুর রহমান মিজু, আলী হোসেন, শামসুল হুদা মামুন, কাজী আমানুল্লাহ মাহফুজ, দুলাল সাহা, সুলতান আহমেদ বিশ্বাস, সিরাজুল ইসলাম, আমিনুল ইসলাম বুলু, মশিউর রহমান বাবুল প্রমুখ।

এ সময় তারা গার্মেন্টস কর্মীদের ন্যূনতম মজুরি ১৬ হাজার টাকা নির্ধারণের পাশাপাশি ৬ দফা দাবি তুলে ধরেন। দাবিগুলো হলো- কৃষকদের কৃষিপণ্য বিক্রির খাতিরে কৃষক ও কৃষিপণ্যের ব্যবসায়ীদের সমন্বয়ে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এনজিডব্লিউএফ আয়োজিত সংক্ষিপ্ত সমাবেশের মাধ্যমে এ দাবি জানানো হয়।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, মালিকদের এবং সরকারের বিবেচনা করা উচিৎ যে, শ্রমিকদের জীবনমান, স্বাস্থ্য নিরাপত্তা এবং সন্তুষ্টির সঙ্গে উৎপাদন এবং পণ্যের মান সম্পর্কিত। অভুক্ত, অর্ধাহার বা অতৃপ্ত শ্রমিকদের দিয়ে অধিক উৎপাদন এবং গুণগত মান আশা করা যায় না। ইতোমধ্যে জাহাজ ভাঙা শ্রমিকদের সর্বনিম্ন মজুরি নির্ধারণ হয়েছে ১৬ হাজার টাকা, সরকারি কর্মচারীদের বর্তমান সর্বনিম্ন বেতন ১৭ হাজারেরও বেশি। কিন্তু দেশের প্রধান রপ্তানিকারক শিল্প গার্মেন্টস শ্রমিকদের জন্য মজুরি কেন এতো কম থাকবে? তাদের মজুরি ১৬ হাজার টাকার কম কোনভাবেই নির্ধারণ করা যাবে না।

সংগঠনটি সভাপতি আমিরুল হক আমিনের সভাপতিত্বে সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন- সৈয়দ সুলতান উদ্দিন আহমেদ, মো. শহিদুল ইসলাম, এম দেলোয়ার হোসেন, আরিফা আক্তার, ফারুক খান, সাফিয়া পারভীন, মো. রফিক, নাজমা আক্তার, কোহিনূর আক্তার প্রমুখ। সমাবেশের আগে পল্টন, প্রেসক্লাব, হাইকোর্ট ও তোপাখানা রোড এলাকায় বাংলাদেশের পতাকা ও লাল পতাকা সজ্জিত একটি র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয়।

তথ্যসূত্র: বাংলানিউজ২৪ ডটকম।

Check for details
SHARE