ক্রেতার সাথে শুধু ব্যবসায়িক সম্পর্ক নয়!

ক্রেতা যারা সাথে ব্যবসায়ের অন্তরাত্মার সম্পর্ক। যাকে ছাড়া ব্যবসার চিন্তাই করা যায় না তার সাথে কি শুধুই ব্যবসায়িক রিলেশেন? একজন ক্রেতা যিনি ব্যবসায়ের প্রাণ। তিনিই আপনার ব্যবসায়ের সবচেয়ে মুল্যবান সম্পদ। ক্রেতা সন্তুষ্টি অর্জন করে যে ব্যবসায়ী ব্যবসা করতে পারে তার সমৃদ্ধির পথটা সহজ হয়। তাই বলে কিন্তু বাকি বা ধারে পন্য দিয়ে সম্পর্ক বাড়ানোর চেষ্টা ব্যবসায়ের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ।

একজন ক্রেতা শুধু আপনার পন্যের একজন গ্রাহক নয় বরং অনেক ক্রেতার সমাহার। কারন একজন সন্তুষ্ট ক্রেতার রেফারেন্স আপনার পন্যের বিক্রয় বাড়াতে পারে বহুগুন পর্যন্ত। একজন ক্রেতাকে সন্তুষ্ট রাখতে সর্বোচ্চ গুনগত মানের প্যণ্য বাস্তবসম্মত মূল্যে প্রদান করতে হবে। পাশাপাশি ক্রেতাকে দেওয়া কমিটমেন্ট বা প্রতিশ্রুতি রক্ষা করতে হবে।

একজন ক্রেতার সাথে শুধু ব্যবসায়িক সম্পর্ক নয়। ব্যবসায়ের পরিধির বাইরে গিয়ে ব্যক্তিগত সম্পর্কও তৈরী করতে হবে। সম্পর্কটা এমন যে ক্রেতা শুধু আপনার সাথে ব্যবসায়ের সুবাদে নয় ব্যাক্তিগত খাতিরেও আপনার সাথে যোগাযোগ করবে। একজন ক্রেতার সাথে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক তৈরী ও রক্ষা করতে হবে। ব্যবসায়ের ক্ষেত্রে একজন ক্রেতার সাথে একাধিক বিক্রেতার পরিচয় ও বন্ধুত্ব থাকে। তাদের মধ্য থেকে আপনাকে সর্বোচ্চ স্থানটি দখল করে সম্পর্ক তৈরী করতে হবে।

একজন ক্রেতার সাথে হাসিমুখে কথা বলতে হবে। তার ব্যবসায়িক খবরা-খবরের পাশাপাশি তার পারিবারিক খবরা-খবরও গুরুত্বের সাথে সংগ্রহে রাখতে হবে। সর্বোপারি একজন ক্রেতাও একজন মানুষ। তার সুখ, দুঃখ, সুবিধা অসুবিধার খবর জানতে হবে। সম্ভব হলে মানবিক বিষয়গুলোতে তাকে সাহায্য করতে হবে। তার পাশে দাঁড়াতে হবে।

একজন ক্রেতার মুড বুঝে তার সাথে আলোচনায় যেতে হবে। অতি উৎসাহী হয়ে কোন ব্যক্তিগত বিষয়ে না জড়ানো ভাল হবে। আর হ্যা আপনার ক্রেতা যে রাজনৈতিক মতাদর্শের হোক না কেন কখনোই রাজনৈতিক বিষয়ে আলাপচারিতায় না জড়ানো উত্তম হবে। কোন বিষয়ে ক্রেতার নিজস্ব মতাদর্শের সাথে আপনার মতাদর্শ নাও মিলতে পারে। এ পরিস্থিতে কখনোই উত্তেজনাকর পরিবেশ না যাওয়া বুদ্ধিমানের কাজ হবে।

আপনার ক্রেতা আপনার সম্পর্কে জানতে চাইতে পারে। যতটুকু সম্ভব খোলামনে আপনার নিরাপত্তার সীমানা রেখে জানান। সম্পর্ক উন্নয়নের জন্য কখনোই বাকি বা ধারে লেনদেন করা বুদ্ধিমানের কাজ হবে না। একজন ক্রেতার কাছে আপনার একমাত্র মূল উদ্দেশ্য পন্য বিক্রয় করে মুনাফা অর্জন করা। সেটি করতে গিয়ে কখনোই নিজের মুলধন হারানোর ঝুঁকি নেওয়া যাবে না।

কথিত আছে ক্রেতা লক্ষী আর দোকানদার বা বিক্রেতা পেঁচা। তবে আপনাকে পেঁচামুখ বিক্রেতা হলে চলবে না। ঠোটের কোনে হাসি ধরে রাখতে হবে সবসময়। অমায়িক ব্যবহারের সাথে আপনাকে ধৈর্য্য ধারন করে তার কথা শুনতে হবে। মিথ্যা কোন প্রতিশ্রুতি দিয়ে সম্পর্ক উন্নয়নের চেষ্টা বৃথা হতে সময় লাগবে না। সেক্ষেত্রে এ ধরনের কোন কৌশলে না যাওয়া হবে বুদ্ধিমানের কাজ।

শুরুতেই বলেছিলাম একজন ক্রেতাও মানুষ। সুতরাং তার আবেগ অনুভুুতি গুলো যথাযথ মর্যাদার সাথে দেখতে হবে। ক্রেতার সাথে শুধুমাত্র ব্যবসায়িক রিলেশনের বাইরে গিয়ে যখন সম্পর্ক তৈরী করতে পারবেন তখনই আপনার উদ্দেশ্য অর্জন করার রাস্তাটা সহজ হবে। শুধু বন্ধুত্ব নয় যখন ভাল বন্ধুত্ব তৈরী করতে পারবেন তখনই আপনার অবস্থানটা সমুন্নত হবে। আস্থার জায়গা থেকে সে আপনার নিয়মিত ক্রেতায় পরিনত হবে।

লেখক:
মোঃ মাসুদুর রহমান মাসুদ
উদ্যোক্তার খোঁজে ডটকম।

Check for details
SHARE